বাংলাদেশের সংঘর্ষের খবর শুনে কি বলল মেসি এবং নেইমার

বাংলাদেশ বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলতে নাও পারে। তবে এদেশে ফুটবল উন্মাদনার অভাব নেই। বিশ্বকাপ এলে এই উন্মত্ততা সমান নয়। যাইহোক, এবার কোপা আমেরিকায় ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনার সমর্থন এই পাগলামির স্তরকে ছাড়িয়ে গেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংঘর্ষ হয়। চট্টগ্রাম থানার পুলিশকে এ বিষয়ে একটি সতর্কতা জারি করতে হয়েছিল।

ব্রাজিলিয়ান ও আর্জেন্টিনার ফুটবল ভক্তরা অত্যন্ত ক্ষুব্ধ এবং এই সংঘর্ষ আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। সে কারণেই এই ছোট্ট দেশের ফুটবল উন্মাদনার খবরটি এখন মেসি ও নেইমারের কানে পৌঁছেছে। বাংলাদেশে যতটা উন্মাদনা রয়েছে, ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা নিজেই তেমন উন্মাদনা নেই।

আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এএফপি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এই ঘটনার সংবাদ প্রকাশ করেছে। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার হয়ে ফাইনালের ম্যাচে এই ঘটনার খবর এবং আইন প্রয়োগকারী বাহিনী মোতায়েনের খবর বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ ইমরান ইসলাম এএফপিকে বলেছেন, ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যে কোন দেশ আরও ভাল খেলবে সে নিয়ে দু’পক্ষের তর্ক ছিল। আরও ভক্তরা তাদের সাথে যোগ দিয়েছিলেন।

ব্রাজিলের মারাকানায় তামার ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, সেখান থেকে প্রায় ১৫ হাজার কিলোমিটার দূরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই দেশের মধ্যে ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে আইন প্রয়োগকারীরা সর্বদা সজাগ থাকে। রবিবার বাংলাদেশ সময় ভোর at টায় কোপা আমেরিকা ফাইনালে ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা।

ইমরান আল ইসলাম এএফপিকে বলেছেন, “আমরা গ্রামবাসীদের জানিয়েছিলাম যে তারা বড় পর্দায় ম্যাচটি দেখতে পাবে না।” ম্যাচটি দেখার জন্য ফাইনাল ম্যাচ চলাকালীন গ্রামবাসীদের জড়ো হতে দেওয়া হয়নি।

এজেন্সি ফ্রান্স-প্রেসের সংবাদ ছড়িয়ে পড়ার পরে এবং বুয়েনস আইরেস টাইমস বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়েছিল এবং আর্জেন্টিনার রাজধানী থেকে ইংরেজি ভাষার ম্যাগাজিনের শিরোনামটি ছিল “কোপা আমেরিকার ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য বাংলাদেশ সতর্কতা অবলম্বন।”

ফরাসী রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ফ্রান্স 24 এই অনলাইন সংবাদ প্রকাশ করেছে। মিশরীয় মিডিয়া “আল-আরহাম” এর বৈদ্যুতিন সংস্করণেও সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছিল। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের একটি অনলাইন নিউজ আউটলেট ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসেও এই খবর প্রকাশিত হয়েছিল।

এএফপির একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যখন ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনার মধ্যকার ম্যাচ হয় বা লক্ষ লক্ষ লোক বিশ্বকাপে তাদের প্রিয় দলের পতাকা তুলেন, তখন রাস্তায় মিছিলও হয়।

সর্বশেষ বিশ্বকাপে ব্রাজিলিয়ান পতাকা তুলতে গিয়ে একটি ১২ বছর বয়সী ছেলে বিদ্যুতায়িত হয়েছিল। এবার কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার পতাকা তুলতে গিয়ে গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু হল।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *